ফেসবুক মার্কেটিং

ফেসবুক মার্কেটিং a to z 2024 থেকে 2025 পদ্ধতি!

Facebook Marketing a to z 2024 to 2025 Method!

Welcome To ( ERIN )

ফেইসবুক মার্কেটিং

সময় এর  সাথে সাথে পৃথিবীর অনেক পরিবর্তন হয়ে গেছে  মানুষ আগে যে কোনো পন্য কিনতে হলে দোকানে যেতে হতো বা বাংলাদেশর গ্ৰাম দিতে তেমন প্রয়োজনীয় কিছু পন্য পাওয়া একবারেই যেত না। 

কিন্তু এখন সব কিছু আমাদের হাতের নাগালে আপনি চাইলে আপনার সামনে যে কোনো পন্য বা সেবা ২ মিনিটে আপনার হাতের নাগালে পাবেন কারন পৃথিবী এখন আপডেট ডিজিটাল যুগের মধ্যে আমারা এখন বসবাস করতেছি। 

কিছু বছর আগে মানুষ টিভি অথবা রেডিও তে বিজ্ঞাপন দেখতে এবং সুনতে পেতো তবে ডিজিটাল যুগে এসে মানুষের হাতে হাতে পন্য,সেবা, চাকরি,ব্যবসা মোটামুটি সব কিছুই এখন ডিজিটাল ভাবে স্মার্ট ফোন এর মাধ্যমে দেখতে পাচ্ছি।

 

ফেইসবুক হলো একটি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম। সব সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে ফেইসবুক একটু বেশি কার্যকর।ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি চাইলেই অনাহাসে নেটওয়ার্কিং বিল্ড আপ করতে পারবেন।

একটা রেশিও চেক করে দেখতে পারলাম বাংলাদেশী ফেসবুক ব্যবহারকারী সংখ্যা ৪ কোটি ৪৭ লাখ।

মোটমাট ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা হিসাব করলে বাংলাদেশ বিশ্বে দশম অবস্থানে আছে ফেসবুক ব্যবহারকারীর দিক থেকে।

ফেইসবুক মার্কেটিং কি ?

ফেসবুক মার্কেটিং ফেসবুকে একটি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম !

মার্কেটিং বলতে বুঝায় প্রচার প্রসারণ।তাহলে আমরা ফেসবুক কে ব্যবহার করে বিভিন্ন কৌশলে আমাদের পণ্য অথবা সেবার প্রচার প্রসারন করতে পারি। 

Digital Marketing এর সব চেয়ে মাদার নিস হচ্ছে ফেসবুক মার্কেটিং। 

ফেসবুক মার্কেটিংয়ের এর মাধ্যমে চাইলে আপনি আপনার পন্য,সেবা অথবা আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রচার প্রসার করে লাভবান হতে পারবেন।

ফেইসবুক মার্কেটিং কত প্রকার হয়ে থাকে !

ফেসবুক মার্কেটিং প্রধানত দুই প্রকার 

১. অর্গানিক মার্কেটিং .

২. পেইড মার্কেটিং . 

অর্গানিক মার্কেটিং কি? 

অর্গানিক মার্কেটিং ফেইসবুক এই প্ল্যাটফর্মকে ব্যবহার করে কোনো টাকা পয়সা investment না করে সম্পূর্ণ ফ্রিতে আমরা কোন প্রোডাক্ট প্রচার প্রসার করি তাকে Organic Marketing  বলে। 

Organic Marketing  বিভিন্ন উপায়ে করা যায়। 

যেমন  ফেসবুকে যে পোস্টটি আপনি অর্গানিক মার্কেটিং করতে চান সেই পোষ্টের উপর ভিত্তি করে ফেসবুকে বিভিন্ন গ্রুপ পেয়ে যাবেন ওই গ্রুপগুলোতে পোস্ট  করলে। 

ওই পোস্ট ক্যাটাগরি অনুযায়ী মানুষেরা এনগেজ হবে যদি আপনার পণ্য সেল করতে চান সেই ক্ষেত্রে ওই রিলেটেড মানুষের কাছে পৌঁছে গেলে তারা পন্যটি কেনার জন্য আগ্রহী হবে এভাবেই আরো অনেকের মাধ্যমে অর্গানিক মার্কেটিং করে থাকে। 

পেইড মার্কেটিং কি?

পেইড মার্কেটিং ফেসবুক এই প্লাটফর্মকে ব্যবহার করে আমরা কোন প্রোডাক্ট এর প্রচার প্রসারণ বা প 100% টার্গেটেড অডিয়েন্স আইডেন্টিফাই করে ফেইসবুক কে টাকা দিয়ে প্রমোশন করি ।যেকোনো প্রতিষ্ঠানের সার্ভিস অথবা প্রোডাক্ট কে টার্গেটেড ট্রাফিক বা লোকেশন বেস মানুষের কাছে ফেসবুকে টাকা দিয়ে আমরা প্রচার প্রসার করে থাকি তাকেই পেইড মার্কেটিং বলে। 

ফেইসবুক পেড মার্কেটিং এর মাধ্যমে ফেসবুক আমাদের কাছ থেকে তিনটি বিষয়ে টাকা কেটে  নিয়ে যায় ।

  1. CPV -> cost par view
  2. CPC ->cost par click
  3. CPA->cost par action 

 

কোনো একটা প্রোডাক্টের টার্গেটেড অডিয়েন্স সেটআপ করি ৪ বিষয়ের মাধ্যমে:

  1. Location base 
  2. Age base 
  3. Gender base
  4. Details targetting base
আরো পড়ুন:

WordPress Basic কোর্স।

keyword রিসার্চ ও এনালাইসিস কিভাবে করবেন।

মোবাইল দিয়ে ফেসবুক মার্কেটিং করা আসলেই সম্ভব?

অবশ্যই আপনি মোবাইল দিয়ে ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে ফেসবুক মার্কেটিং করার সহজ নিয়ম হচ্ছে আপনি আপনার মোবাইলটি দিয়ে Chrom browser এ গিয়ে Desktop mode করে অনা আসে ফেসবুক মার্কেটিং এর সকল কাজ করতে পারবেন। 

ফেসবুক মার্কেটিং করে ফ্রিল্যান্সিং 

ফেসবুক মার্কেটিং করে ফ্রিল্যান্সিং করার অনেক উপায় রয়েছে। আপনি যদি প্রপার  ফেসবুক মার্কেটিং এর উপর দক্ষশীল হয়ে থাকেন।

আপনি ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেস এবং আউট অফ মার্কেটপ্লেসে ফেসবুক মার্কেটিং করে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবেন। 

ফেসবুক মার্কেটিং এর প্রচুর চাহিদা রয়েছে ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস। 

  • Fiver
  • Upwork 
  • Kwork 
  • Guru.com
  • Freelancer.com 

এইসব ইন্টারন্যাশনাল মার্কেট প্লেসে প্রচুর চাহিদা রয়েছে  ফেসবুক মার্কেটিং এর উপর।

LinkedIn এ অনেক বড় বড় ফেসবুক মার্কেটিং এর উপর প্রজেক্ট রয়েছে অর্থাৎ লিংকডিন মাধ্যমে ফেসবুক মার্কেটিং করে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবেন। 

তাছাড়া আরও বিভিন্ন প্লাটফর্ম রয়েছে Tiwtter , Pintarest বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম। 

ফেসবুক মার্কেটিং করে ইনকাম কিভাবে করবেন ২০২৪ মেথড।

ফেসবুক মার্কেটিং ইনকাম করার অনেক কৌশল রয়েছে যেমন আপনার নিজের পণ্য বা সেবা এবং প্রতিষ্ঠানের প্রচার প্রসার করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

Fiver Upwork. LinkedIn এর মতন মার্কেটপ্লেসে‌ আপনি যদি ফেসবুক মার্কেটিং এক্সপার্ট হয়ে থাকেন সেই ক্ষেত্রে সার্ভিসটি দিয়েও লক্ষাধিক টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

তাছাড়া আরও বিভিন্ন উপায় আপনি ইনকাম করতে পারবেন ফেসবুক মার্কেটিং এর মাধ্যমে।

বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনার নেটওয়ার্কিং বৃদ্ধি করতে হবে এবং তাদের সাথে কানেক্ট হতে হবে যাদের ফেসবুক এর সাথে জড়িত অর্থাৎ ব্যবসা বা সার্ভিস বা প্রতিষ্ঠানের মালিকদের সাথে তারা মূলত Facebook marketing  এই সার্ভিসটি নিয়ে থাকে এটি করেও আপনি ইনকাম করতে পারবেন।

প্রধান পাঠ্য:

Facebook ads campaign

ফেসবুক প্রোফাইলে Nid কার্ডের নাম এবং জন্ম তারিখ না থাকবে সেই ফেসবুক আইডিতে Facebook paid marketing  করা জবে না। 

ফেসবুকে প্রেমেন্ট করার জন্য যেকোনো ব্যাংকের ডুয়েল কারেন্সি কার্ড লাগবে।Pioneer Card ,করার জন্য প্রথমত pioneer এ একটা একাউন্ট করা লাগে।

Pioneer এ একাউন্ট করার জন্য NID কার্ড এর কপি এবং ব্যাংকিং একাউন্ট নাম্বার।

Pioneer থেকে card পাওয়ার জন্য যেকোনো মার্কেটপ্লেস থেকে ১০০ ডলার সমপরিমাণ টাকা   pioneer account withdraw করতে হবে।

ফেসবুক পেইড মার্কেটিং

  • করার জন্য প্রথমত পেজ এ গিয়ে প্রমট এবং এডভাটাইজার এ জেতে হবে  প্রমট এবং এডভাটাইজার কাজ হচ্ছে একটা পেজ এর লাইক এবং ফোলোয়াছ জেনারেটর করা ।
  • Boost post এর কাজ হচ্ছে একটা পোস্ট কে মানুষ এর কাছে মার্কেটিং করে ওই পোস্টে লাইক কমেন্ট শেয়ার এবং ওই পোস্টে প্রোডাক্ট সেল করা ।
  •  Products marketing করার জন্য প্রথমত বুস্ট পোস্ট  গিয়ে  Goal সেটআপ get more massage . Audience সেটআপ Audience edit  Gendar . Age . Location . Detailed targeting এর মধ্যে আছে Browser-> এর মধ্যে আছে ।

(1)  Demographics 

(2)  Interestes 

(3)  Behaviours. 

সব কিছু সেটআপ করার পর save audience বাটন এ ক্লিক করতে হবে। Then Duration মিনিমাম ৪ দিনের নিচে পেড মার্কেটিং করা যায় না।

Lust PYMWNT Method. Neme of card Card numbar Mm/Yy -> এক্সপায়ার ডেট Cvv-> কার্ডের গোপন নাম্বার। Promote এ ক্লিক করে create new ad এ গিয়ে  goal সেটআপ করতে হবে ।

পেজে লাইক ফোলোয়াছ জেনারেটর করার জন Get morepage likes  এ ক্লিক করতে হবে Goal setup done ???? Description এ ৩ লাইনে ২৫৫ ক্যারেক্টারের মধ্যে লিখতে হবে Then Audience details সেটআপ করে

Duration সেট আপ করতে হবে তারপর মাস্টার কার্ড থেকে কার্ডের ইনফরমেশন দিয়ে save দিলে প্রোমট হয়ে যাবে ।

 

Facebook ads campaign Part 2 জন্য অপেক্ষা করুন আরো বিস্তারিত অনেক এডভান্স কিছু টপিক নিয়ে আলোচনা করা হবে!!

 শেষ কথা  

এই ডিজিটাল যুগে আপনি যদি Student  অথবা চাকরিজীবী হয়ে থাকেন  অবসর যদি সময় থাকে আপনার হাতে অবশ্যই আপনি  কোন একটা টপিকের উপর আপনি দক্ষ শীল ব্যক্তি হাওয়ার চেষ্টা করবেন।

না হলে আপনি অনেক পিছিয়ে পড়বেন এবং  Facebook markting এর উপরও চাইলে আপনি দক্ষ হতে পারেন তার জন্য রীতিমতো আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করুন এবং আরো অনেক ইম্পরট্যান্ট তথ্য পেতে আমাদের সাথে জড়িত থাকুন সবসময়।

 

বিঃদ্রঃ কোনো বানান ভুল থাকলে ক্ষমাপ্রার্থী !

আরো তথ্যপূর্ণ ইনফরমেশন পেতে আমাদের  Youtube  চ্যানেল ঘুরে

আসতে পারেন!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *