ষষ্ঠ শ্রেণির বাংলা
ষষ্ঠ শ্রেণির বাংলা

ষষ্ঠ শ্রেণির বাংলা তৃতীয়  অধ্যায় ২য় পরিচ্ছেদ সমাধান ২০২৪

Welcome To ( ERIN)

Class Seventh Chapter 3rd Chapter 2nd Solution

 

ষষ্ঠ শ্রেণির বাংলা তৃতীয়  অধ্যায় ২য় পরিচ্ছেদ সমাধান 

 

ষষ্ঠ বাংলা নতুন কারিকুলামের তৃতীয় অধ্যায়ের ২য় পরিচ্ছেদ সমাধান  : পড়াশোনার উৎপত্তি হয় একটি বর্ণ থেকে। কিন্তু বর্ণ দ্বারা মনের ভাব প্রকাশ হয়না বলেই শব্দের জন্ম।  এখন কথা বলার ক্ষেত্রে  শব্দ ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য (আবশ্যিক) । একটি শব্দের শব্দের একাধিক  অর্থ থাকে।

 

  একই শব্দের ভিন্ন ভিন্ন অর্থ রয়েছে  যেটা দিয়ে ভাষা প্রকাশে একেক শব্দকে আমরা একেকভাবে ব্যবহার করে থাকি। যারফলে একটি শব্দের ব্যবহার অবস্থান অনুযায়ী আমরা খুব সহজে বিভিন্ন ভাবে মনের  ভাব প্রকাশ করতে সক্ষম হই । যেমন: বায়ু শব্দটি কে আমরা বাতাস হিসেবে যেমন ব্যবহার করতে পারি তেমনই বায়ু বলেও ব্যবহার করা যাবে। একটা শব্দ কে বিভিন্ন ভাবে ব্যবহার করা যাবে।

 

৬ষ্ঠ শ্রেণির বাংলা তৃতীয় অধ্যায় দ্বিতীয়  পরিচ্ছেদ

 

আবার ছোট শব্দটি দ্বারা যেমন ক্ষুদ্র  বোঝায় তেমনই কৃপনতাও বোঝায়। এভাবে  বড়,মাথা, হাত, পাকা,কাঁচা, পানি, চোখ, কান, পাকা, শেষ ইত্যাদি শব্দের রয়েছে বৈচিত্রপূর্ণ অর্থ। আবার একটি শব্দের একাধিক সমার্থক শব্দ দিয়ে ভিন্ন ভাবে প্রকাশ করা যায়। 

 

যেমন: পানি শব্দটিকে জল,সলিল,বারি শব্দ দিয়ে প্রকাশ করা যায়। অন্যত্র সমুদ্র শব্দটি সাগর,  অর্ণব,সিন্ধু,  প্রভৃতি শব্দ দিয়ে প্রকাশ করা যায়। এভাবে আগুন,হাত,কন্যা, আকাশ,বাতাস, পানি, পর্বত, নদী, সাপ,  ইত্যাদি শব্দকে বিভিন্ন  প্রতিশব্দ দিয়ে প্রকাশ করাযায়।

 

শব্দের প্রতিশব্দ ব্যবহার করলে  অবস্থান ভেদে ভাষার মাধুর্যতা বেড়ে  যায়। আবার একটি শব্দের যেমন সমার্থক শব্দ আছে তেমনি  বিপরীত শব্দও রয়েছে। যেমন: ভালো শব্দের বিপরীত  মন্দ , সুখ  শব্দের বিপরীত  শব্দ  দুঃখ । এভাবে কাঁচা, চালাক, কালো,সঠিক, আকাশ ইত্যাদি প্রতিশব্দের কিছু  বিপরীত অর্থও থাকে।

 

কাজ-১ : নিচের কবিতাংশ থেকে গগন, ধরণী, তরুণ, দল, প্রভাত, রাত,নবীন  শব্দগুলোর দুটি করে প্রতিশব্দ লেখো।

 

চল্ চল্ চল্ 

কাজী নজরুল ইসলাম

 

চল্ চল্ চল্! 

ঊর্ধ্ব গগনে বাজে মাদল, 

নিম্নে উতলা ধরণী-তল, 

অরুণ প্রাতের তরুণ দল

চল্ রে চল্ রে চল্। 

চল্ চল্ চল্ ॥

 

ঊষার দুয়ারে হানি আঘাত 

আমরা আনিব রাঙা প্রভাত,

আমরা টুটাব তিমির রাত,

বাধার বিন্ধ্যাচল।

 

নব নবীনের গাহিয়া গান 

সজীব করিব মহাশ্মশান, 

আমরা দানিব নতুন প্রাণ,

বাহুতে নবীন বল।

(সংক্ষেপিত)

 

উত্তর:

 

গগন – আকাশ,নভঃ, অম্বর।

 

ধরণী-পৃথীবি,ধরা,শরিত্রি।

 

তরুণ -নবীন,কিশোর বালক,নবযুবক। 

 

দল-গোষ্ঠী,সভা,সম্মেলন।

 

প্রভাত-ভোর, সকাল,প্রত্যুষ।

 

রাত-রজনী,নিশী,যামিনী।

 

নবীন -নব্য,নব,তরুণ। 

 

কাজ-২ : উপরের কবিতাংশ থেকে চল, দল,রাঙা,গান,প্রাণ,নতুন শব্দগুলোর একটি করে মুখ্য অর্থ ও গৌণ অর্থ লেখো।

 

উত্তর:

চল

মুখ্য অর্থ (চলমান নির্দেশ ): এই রাস্তা দিয়ে চল তো বাড়িতে যায়।

গৌণ অর্থ (প্রাসঙ্গিক অর্থে): সবকিছু তেই এতো চল চল করবা না তো আমার ভালো লাগে না।

 

রাঙা

মুখ্য অর্থ (রঙিন): ভালো ভাবে পড়াশোনা টা করলে জীবন অতি দ্রুত রঙিন হয়ে উঠবে।

গৌণ অর্থ (উদ্দেশ্য ): তোমার চেহেরাটা আজ এতো রঙিন লাগতেছে কেন?

গান

মুখ্য অর্থ (সংগীত ): তোমার গলার সুরের গান আমাকে মুগ্ধ করে তুলে।

গৌণ অর্থ (পার্থক্য): সারাদিন এতো মানুষের জীবনের গান গাও কেন নিজের কথা ভাবো  বাপু!

 

মাটি

মুখ্য অর্থ (মৃত্তিকা) : এই মাটিই আমার একমাত্র অবলম্বন।

গৌণ অর্থ (অনর্থ): লোকটা আমার সব কাজ মাটি করে দিল।

 

প্রান

মুখ্য অর্থ (বাস্থব): পাশের বাসার সমেদের মরণ যন্ত্রণা দেখে আসলাম প্রাণটা যায় যায় অবস্থা। 

গৌণ অর্থ ( মায়া) : তেমাকে মন-প্রাণ দিয়ে ভালোবাসি মা।

 

নতুন

গৌণ অর্থ (শিশু) : আজ নতুন জন্ম হয়েছে শিশুটার।

মূখ্য অর্থে(ঘটনা) : জামিল কে দেখলাম পারফিউম দিয়ে ঘুরতেছে নতুন বড়লোক তো!

 

কাজ-৭ : সমার্থক শব্দ লিখা।

 

মানুষের শরীরের  অঙ্গপ্রত্যঙ্গের বিষয় নিয়ে কিছু  সমার্থক শব্দ :

উত্তর :

৪. গাল: গন্ড,কপোল, গ-দেশ।

৫. চুল: কৃশলা, কুন্তল, কেশ শিরোজ।

৬. চোখ: অক্ষি, আঁখি, নয়ন, নেত্র।

৭. কান: শ্রুতি, কর্ণ ,শ্রবণ। 

৮.মাথা: আগা,ডগা,মস্তক।

৯.পা: চরণ,পায়া,পায়ের পাতা।

১০. হাত:, পাণি, বাহু, ভুজ, হস্ত, কর।

 

প্রাকৃতিক বস্তু বিষয়ক সমার্থক শব্দ :

 

 পর্বত:  অদ্রি, গিরি, নগ, পাহাড়, ভূধর, মহীধর, শৈল,অচল।

অগ্নি: , অনল,দহন, আগুন , বহ্নি, পাবক, বৈশ্বানর, শিখা,  হুতাশন সর্বভুক ।

জল: , জীবন, অম্বু, নীর, বারি পানি, সলিল।

আকাশ: অনন্ত, অন্তরিক্ষ, অম্বর, আসমান, গগন, নভঃ, ব্যোম, শূন্য।

কন্যা: আত্মজা, তনয়া, দুহিতা, নন্দিনী, সুতা।

নারী:কামিনী,ভামিনী,মহিলা,স্ত্রী,ললনা,অবলা,বামা,রমণী। 

পৃথিবী: ধরণি,দুনিয়া,বসুমতি,অবনী, জগৎ,  ধরা, ধরিত্রী, বসুধা, বসুন্ধরা, ।

বাতাস :  পবন, প্রভঞ্জন,  মরুৎ, সমীর, সমীরণ, হাওয়া,অনিল,গন্ধবহ,বায়ু।ভ্র

মর: ,ভূংগ, মধুকর, মধুপ,  অলি, শিলিমুখ।

এরিনের পক্ষ থেকে আজকের সেশন ছিল।  ষষ্ঠ শ্রেণীর বাংলা তৃতীয় অধ্যায়ের দ্বিতীয় পরিচ্ছদ সমাধান। নতুন কারিকুলামের ২০২৪। সবাই কে স্বাগতম এবং ধন্যবাদ। 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *